রাজশাহীর আমের দামে করোনার বাগড়া

0

মো. মনজুরুল ইসলাম নাসিব রাজশাহী থেকে : রাজশাহীর বানেশ্বর আমের বাজার দেশের সবচেয়ে বড় আমের হাটগুলোর মধ্যে অন্যতম। সরেজমিন এই হাটে যেয়ে দেখা যায়, প্রতিদিন শতশত ভ্যানভ্যান , ব্যটারিচালিত গাড়ি করে চাষীরা আম নিয়ে এসেছে, কিন্তু ১১ জুন থেকে রাজশাহী মহানগরীতে কঠোর লকডাউন থাকায় হাটে সরবরাহের চেয়ে ক্রেতা কম। বাঘা থেকে ৫০ মন ল্যাংড়া আম হাটে নিয়ে এসেছে চাষী হাবিবুর, ১৫০০ টাকা মনপ্রতি দাম হাকাচ্ছেন, কিন্তু পাইকার সর্বোচ্চ ১২০০ টাকা দাম বলেছে, আমচাষী হাবিবুর রহমান বলেন, বিগত কয়েক বছরের চেয়ে এই বছর আমের ফলন ভাল হয়েছে অথচ করোনার কারনে আশানুরূপ দাম পাওয়া যাচ্ছে না । গত বছর ল্যাংড়া আমের পাইকারি মূল্য ২২০০ থেকে ২৫০০ টাকা পেলেও এইবার তার অর্ধেক দামে দিতে হচ্ছে । এক বছরের জন্য বাগান লিজ নিয়ে এই অল্প দামে আম বিক্রি করে আসল টাকা তোলায় কঠিন হয়ে পড়েছে। এমতাবস্থায় আশার কথা শোনাচ্ছেন অনলাইনে আম ভিত্তিক গড়ে উঠা ইকমার্স প্লাটফর্ম ।

রাজশাহী বিশ্ববিদ্যালয়ের মার্কেটিং বিভাগের চতুর্থ বর্ষের শিক্ষার্থী সানজিদুল ইসলাম বলেন, গত তিন বছর ধরে ফেসবুকে পেজ খুলে আমের ব্যাবসা করি। এবছরের শুরুতে অর্ডারও বেশি আসছিল, ব্যবসাও ভাল ছিল। গত শুক্রবার থেকে রাজশাহীতে কঠোর লকডাউনের কারনে আম বাগান থেকে কুরিয়ার সার্ভিস পর্যন্ত নিয়ে পরিবহন খরচ দ্বিগুন। কোন সময় তারও বেশি লাগছে। আরও আছে কুরিয়ার কোম্পানির লাগামহীন মূল্য। যার সব খরচই ক্রেতাকে বহন করতে হচ্ছে। এমতাবস্থায় ক্রেতা হারানোর আশংকা করছেন স্থানীয়রা।

উত্তর দিন

আপনার ইমেইল ঠিকানা প্রচার করা হবে না.